ভ্রমণের ভয় যেভাবে দূর করবেন

ভ্রমণের ভয় যেভাবে দূর করবেন তার সম্পর্কে এই পোস্টটিতে আজ বিস্তারিত আলোচনা করব প্রিয় পাঠক এই পোস্টটি না টেনে সম্পন্ন পোস্ট করার চেষ্টা করুন সম্পূর্ণ পোস্টটিতে বলা হয়েছে ভ্রমণের ভয় যেভাবে দূর করবেন সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার আগে সূচিপত্র টি দেখে নিন তাহলে আপনি বুঝতে পারবেন কোনটা গুরুত্বপূর্ণ আপনার জন্য সেই তাতে ক্লিক করা মাত্রই সেই জায়গায় নিয়ে যাবে তাহলে আপনার পোস্টটি পড়তে সুবিধা হবে তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক ভ্রমণের ভয় যেভাবে দূর করবেন।
ভ্রমণের ভয় যেভাবে দূর করবেন

সূচিপত্রঃ ভ্রমণের ভয় যেভাবে দূর করবেন

ভূমিকা

দূর যাত্রার আগে দুশ্চিন্তা নতুন কিছু নয়। ছুটির গন্তব্য বাড়ি থেকে একটু দূরে হলেই মাথায় রাজ্যের দুশ্চিন্তা এসে ভর করে। দুশ্চিন্তা থেকে তৈরি হয় ভয়। এমন একটা অবস্থা তৈরি হয় যখন ‘ঘুরতে যাব’ শুনলেই রাজ্যের ভয় এসে মনে ভিড় করে মনে। এমন ভয় পাওয়া অস্বাভাবিক কিছু না। তাই বলে ছোট্ট জীবনে ভ্রমণ বাদ দিয়ে বাসায় বসে থাকাও কাজের কথা না।ভয়ের কারণ।
তবে একটা কথা না বললেই নয় এই পোস্টটি লিখেছেন জনপ্রিয় ব্লগার To Know Info

বাজে অভিজ্ঞতা 

ভ্রমণের ভয় দূর করার আগে ভ্রমণ করতে গেলে কেন ভয় লাগে, তার কারণটা শনাক্ত করা উচিত। আগের বাজে কোনো অভিজ্ঞতা থেকেই তৈরি হয় ভয়। কোথাও ঘুরতে যাওয়া নিয়ে বাজে অভিজ্ঞতা থেকে পরে ঘুরতে যাওয়া নিয়েও তৈরি হতে পারে ভয়।থাকা, খাওয়া, খরচ, এসব কিছুর ব্যবস্থা করতে করতে ঘুরতে বেরোনোর ইচ্ছাটাই অনেকের মরে যায়

ঘুমের অসুবিধা 

নিজের বাসা কিংবা বিছানা ছাড়া ঘুমাতে পারেন না, এমন লোকের সংখ্যা অনেক। কোথাও ঘুরতে বের হলে তাঁদের মূল চিন্তাই থাকে ঘুম। আর ঘুমের অভাব মানেই নিজেদের মতো করে উপভোগ করতে না পারা।

বিরক্ত বোধ

ঘুরতে বেরোনো যতটা না আনন্দের, তার থেকে বহুগুণ বেশি কষ্টের উদ্যোগ আয়োজন। থাকা, খাওয়া, খরচ, এসব কিছুর ব্যবস্থা করতে করতে ঘুরতে বেরোনোর ইচ্ছাটাই অনেকের মরে যায়।
কোথাও ঘুরতে যাওয়ার বেশ কিছু দিন আগে থেকেই পরিকল্পনা শুরু করুন।

পুরনো অভিজ্ঞতা ঝেড়ে ফেলুন

অবকাশ মানেই নিজেকে রিচার্জ করার সুযোগ। নিজেকে সময় দেওয়া, নতুন কিছুর জন্য নিজেকে প্রস্তুত করা। কবে কী বাজে অভিজ্ঞতা হয়েছিল, এই নিয়ে পড়ে থাকবেন না। বরং নতুন অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করতে বেড়িয়ে পড়ুন। পুরোনো অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে, ভুলগুলো শুধরে নেওয়ার চেষ্টা করুন। মনে রাখবেন, একবার যে পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছিলেন, দ্বিতীয়বার তার মুখোমুখি নাও হতে পারেন, আর হলে সহজেই তা উতরে যেতে পারবেন।

বাস্তববাদী হন 

পরিকল্পনা মতো জীবন চলে না। পরিকল্পনা যেকোনো সময়েই বানচাল হতে পারে। আর হতে পারে বলেই জীবন এত রোমাঞ্চকর। জীবনে চড়াই-উতরাই থাকবে, তার ভয়ে ঘরের কোনায় বসে থাকার কোনো মানে হয় না। বরং প্রতিটি মুহূর্তকে পরিপূর্ণভাবে উপভোগ করার জন্য বেড়িয়ে পড়াটা সবচেয়ে জরুরি।

লেখকের শেষ কথা

সবার শেষে বলতে গেলে ভ্রমণের ভয় যেভাবে দূর করবেন তা হল কোন কিছু নিয়ে দুশ্চিন্তা করা যাবে না পরিকল্পনা করতে হবে যেখানে যাবেন সেটা নিয়ে কোন বিরক্ত বোধ আনা যাবে না খরচ এসব নিয়ে বাস্তববাদী সম্পর্কে জ্ঞান থাকতে হবে ঘুমের অসুবিধা হবে না জার্নি করলে এমনিতেই ঘুম চলে আসবে এরকম আরো নতুন নতুন পোস্ট পাওয়ার জন্য আমাদের ওয়েবসাইট ফলো দিয়ে সাথে থাকুন। এছাড়াও আরো কোন প্রশ্ন থাকলে আমাদের জানান আমরা সমাধান দেয়ার চেষ্টা করব।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url